ফ্রিল্যান্সিং কোর্স / আমাদের সার্ভিস

ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে? নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং

আপনি কি ফ্রিলান্সিং শিখতে আগ্রহী? তাহলে আজকের এই পর্বটি আপনার জন্য।কারন আজকের এই পর্বে আমি নতুনদের জন্য ফ্রিলান্সিং সম্পর্কে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর নিয়ে আলোচনা করবো।

আজকের এই পর্বে জানতে পারবেন ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে, ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়, ফ্রিল্যান্সিং কেন করব, ফ্রিল্যান্সিং কি মোবাইলে করা যায়, ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে করা যায়, ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা কিভাবে তুলতে হয়, নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ইত্যাদি।

তাহলে চলুন শুরু করা যাক,

বর্তমানে অনলাইন পেশার ক্ষেত্রে ফ্রিলান্সিং এর জয়জয়কার চলছে। তাই আজকের এই পর্বে ফ্রিলান্সিং নিয়ে কিছু কমন প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হবে যেটা নতুনদের জন্য উপকারি হবে।

ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে (what is freelancing)

ফ্রিল্যান্সিং একটি মাধ্যম যার দ্বারা যেকেউ অনলাইনে কাজ করতে পারবে এবং সেই কাজের বিনিময়ে টাকা আয় করতে পারবে।

ফ্রিল্যান্সিং একটি স্বাধীন পেশা। এই সেক্টরে বাঁধা-ধরা কোনো নিয়ম নেই।

যারা বিভিন্ন অনলাইন সোর্স থেকে কাজ খুজে নিয়ে নিজের ইচ্ছামত কাজ করেন তাদেরকে ফ্রিল্যান্সার বলে।

ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়

ফ্রিলান্সিং এ বিভিন্ন ধরনের কাজ করা যায় যেমন, ছোট পরিসরের কাজ হচ্ছে data entry, photo editing, writing, translation, youtube thumbnail making ইত্যাদি। আর বড় পরিসরের কাজ হচ্ছে web development, programming, graphics design, android app development, 3D animation ইত্যাদি।

ফ্রিল্যান্সিং কেন করব

ফ্রিলান্সিং সেক্টরে সবথেকে বড় সুবিধা হচ্ছে এখানে স্বাধীনভাবে কাজ করা যায়।

একজন চাকরিজীবি প্রতিদিন সকাল ১০ থেকে ৪ টা পর্যন্ত অফিস করে। অনেকের ত সকাল ৮ টা থেকেও অফিস করতে হয়।

কিন্তু ফ্রিল্যান্সারদের ক্ষেত্রে কিন্তু এমন ধরাবাধা কোন নিয়ম নেই। তারা স্বাধীনভাবে কাজ করে টাকা উপার্জন করতে পারে। তাই আপনার ফ্রিলান্সিং করা উচিত।

ফ্রিল্যান্সিং কি মোবাইলে করা যায়

ফ্রিলান্সিং মোবাইলে করা যাবে। তবে সব ধরনের কাজ মোবাইলে করা যাবে না।

এমন কিছু ফ্রিলান্সিং কাজ আছে যেগুলো করার জন্য ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের প্রয়োজন হয় না। হাতের মোবাইল দিয়েই করা যায় যেমন, data entry, photo editing, writing, translation, youtube thumbnail making ইত্যাদি।

নিচের ভিডিওটি দেখলে আপনি বিস্তারিত ধারনা পেয়ে যাবেন।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে করা যায়

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য বর্তমানে অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোকে বলা হয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। ওই সমস্ত মার্কেটপ্লেসগুলোতে ফ্রিল্যান্সিং কাজ করা যায়।

বর্তমানে ৪টি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস হচ্ছে Fiverr, Upwork, freelancer, peopleperhour ইত্যাদি।

এছাড়াও বাংলাদেশে অনেক ফ্রিলান্সিং মার্কেটপ্লেস গড়ে উঠেছে যেগুলো থেকে আপনি প্রতি মাসে ১০০ থেকে ৫০০ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা কিভাবে তুলতে হয়

ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট গেটওয়ে পাইওনিয়ার এর মাধ্যমে তুলতে হয়। এরপর এখান থেকে বাংলাদেশি যেকোনো ব্যাংক একাউন্টে নিয়ে আসা যায়।

এছাড়াও বর্তমানে বিকাশ এর মাধ্যমে তুলা যায়। আপনি আপনার নিজের বিকাশ একাউন্টের মাধ্যমে যেকোনো মুহূর্তে টাকা তুলে ফেলতে পারবেন।

আর যেহেতু ফ্রিল্যান্সিং এর ইনকামটা ডলারে হয়ে থাকে তাই বাংলাদেশি টাকায় পরিমাণটা অনেক বেশি হয়ে থাকে।

তো এই ছিলো, ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে, ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়, ফ্রিল্যান্সিং কেন করব, ফ্রিল্যান্সিং কি মোবাইলে করা যায়, ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে করা যায়, ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা কিভাবে তুলতে হয়, নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং what is freelancing ইত্যাদি নিয়ে নানান ধরনের প্রশ্নের উত্তর।

যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো।

এছাড়াও আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস, ইউটিউবিং, টেকনোলজি বিভিন্ন টিপ্স এন্ড ট্রিক্স, ডিজিটাল স্কিল শিখতে চান তাহলে আমার ইউটিউব চ্যানেল আজই সাবস্ক্রাইব করে ফেলুন। কারন আমি প্রতিনিয়ত ডিজিটাল স্কিল বিষয়ক টিউটোরিয়াল পাবলিশ করে যাচ্ছি আমার চ্যানেলে।

Leave a Comment

Don`t copy text!