এশার নামাজ কয় রাকাত ও কি কি

আপনি কি জানেন এশার নামাজ কয় রাকাত ও কি কি? তাহলে আজকের এই পর্বটি আপনার জন্য। কারন আজকের এই পর্বে আমরা এশার নামাজ নিয়ে বিস্তারিত জানবো।

তো চলুন শুরু করা যাক,

আজকের এই পর্ব থেকে আপনি জানতে পারবেনঃ

  • ফজরের নামাজ কয় রাকাত
  • যোহরের নামাজ কয় রাকাত
  • আসরের নামাজ কয় রাকাত
  • মাগরিবের নামাজ কয় রাকাত
  • এশার নামাজ কয় রাকাত
  • এশার নামাজের নিয়ত

মুসলিম হিসেবে আমাদের প্রত্যেকেরই ৫ ওয়াক্ত নামায জামাতের সাথে আদায় করা উচিত। কারন আল্লাহ্‌ পবিত্র আল কোরআনের সূরা জারিয়াতের ৫৬ নম্বর আয়াতে মানুষ ও জিন সৃষ্টির উদ্দেশ্য সম্পর্কে আল্লাহ ঘোষণা করেছেন,

‘আমি সৃষ্টি করেছি জিন এবং মানুষকে এজন্য যে, তারা আমারই ইবাদত করবে।’

যাইহোক, এই ইবাদত করার জন্য আমাদের প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত সালাত আদায় করতে হয়। ৫ ওয়াক্ত সালাতের মধ্যে রয়েছে ফজর, যোহর, আসর, মাগরিব এবং সর্বশেষ এশার নামায।

প্রত্যেক নামাজের মধ্যে রয়েছে কিছু ফরজ, কিছু সুন্নত, আবার কিছু রয়েছে ওয়াজিব যেমন এশার নামাজের পর ৩ রাকাত বিতরের ওয়াজিব আদায় করতে হয়।

আমরা আজকে জানবো এশার নামাজ কয় রাকাত সুন্নত কয় রাকাত ফরজ পড়তে হয় এবং সাথে অন্যোন্য নামাজ সম্পর্কেও জানবো।

এশার নামাজ কয় রাকাত ও নিয়ত

প্রথমেই আমরা জানবো এশার নামাজ কয় রাকাত সুন্নত কয় রাকাত ফরজ পড়তে হয়?

এশার নামায মোট ১৭ রাকাত পড়তে হয় আমাদের। যথা ৪ রাকাত সুন্নত, ৪ রাকাত ফরজ, ২ রাকাত সুন্নত, ২ রাকাত নফল, ৩ রাকাত বিতর এবং সর্বশেষ ২ রাকাত নফল নামায। তবে বেশিরভাগ মুসল্লি বিতর নামায সহ ১৩ রাকাত নামায আদায় করে থাকে।

এশার নামাজের মধ্যে ২ রাকাত ২ রাকাত করে মোট ৪ রাকাত নফল নামায রয়েছে যেটা অনেকেই আদায় করে না। কারন নফল নামায অতিরিক্ত ইবাদত। এটার নির্দিষ্ট কোনো সংখ্যা নেই। পড়লে স‌ওয়াব পাবেন, না পড়লে সমস্যা নেই

আবার এশার নামাজ ৬ রাকাত সুন্নত ৪ রাকাত ফরজ পড়তে হয় আমাদের। তবে ৬ রাকাত সুন্নতের মধ্যে ৪ রাকাত সুন্নত রয়েছে যেটা সুন্নতে গায়র মুয়াক্কাদা মানে এটি সাধারণ সুন্নতের মতো যা আদায়ের জন্য আমাদের রাসুল (সাঃ) জোর দেননি তবে উৎসাহিত করা হয়েছে ।

এশার নামাজের নিয়ত

প্রত্যেক সালাতের পূর্বে আমাদের নিয়ত করতে হয়। এটা বাধ্যতামূলক। তাই আমাদের প্রত্যেক রাকাতের পূর্বে আলাদা আলাদাভাবে নিয়ত করে নামায আদায় করতে হয়। নিচে এশার নামাজের নিয়ত ধারাবাহিকভাবে বর্ণনা করা হলোঃ

এশার সুন্নত নামাজের নিয়ত

নাওয়াইতু আন্ উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা আরবাআ রাকয়াতাই সালাতিল এশাই সুন্নাতু রাসূলিল্লা-হি তা’আলা মুতাওয়াজ জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

যার বাংলা অর্থ:

“এশার চার রাকাত সুন্নত নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে ক্বিবলামুখী হয়ে নিয়ত করলাম, আল্লাহু আকবার।”

এশার ফরজ নামাজের নিয়ত

নাওয়াইতু আন্ উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা আরবাআ রাকয়াতাই সালাতিল এশাই ফারদুল্লাহি তা’আলা মুতাওয়াজ জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

যার বাংলা অর্থ:

“এশার চার রাকাত ফরজ নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে ক্বিবলামুখী হয়ে নিয়ত করলাম, আল্লাহু আকবার।”

এশার নফল নামাজের নিয়ত

নাওয়াইতু আন্ উসাল্লিয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকয়াতি সালাতিল নফলে  মুতাওয়াজ জিহান ইলা জিহাতিল কা’বাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

যার বাংলা অর্থ: 

“এশার দুই রাকাত নফল নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে ক্বিবলামুখী হয়ে নিয়ত করলাম, আল্লাহু আকবার।”

উপরোক্ত নিয়তগুলো আপনি যদি আরবিতে না পারেন তাহলে কোনো সমস্যা নেই। আপনি বাংলাতেও পড়ে নিতে পারবেন।

কারন নিয়ত মন থেকে করতে হয়। আপনি যদি নামায পড়ার উদ্দেশ্য করে বাসা থেকে বের হোন তখনই আপনার নিয়ত হয়ে গেছে।

এশার নামাজ কয় রাখাত ও কি কি
Image source:emadrasha.com

এশার নামাজের ওয়াক্ত

৫ ওয়াক্ত নামাজের মধ্যে এশা ও ফজরের নামাজের জামাতের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। আপনি যদি এশার নামায জামাতের সাথে আদায় করেন তাহলে অর্ধেক রাতের সওয়াব পাবেন।

এশার নামাজের ওয়াক্ত মাগরিবের ওয়াক্ত শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় এবং ফজরের ওয়াক্ত শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত থাকে। অর্থাৎ সাহরির ওয়াক্ত শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত। (আল-বাহরুর রায়েক : ১/৪৩০)

আরো পড়ুনঃ

কালেমা শাহাদাত বাংলা অর্থ এবং ফজিলত

গোসলের ফরজ কয়টি ও কি কি

তবে রাতের এক-তৃতীয়াংশের শেষের দিকে এশার নামাজ পড়া উত্তম। অর্থাৎ এশার সময় হওয়ার এক থেকে দেড় ঘণ্টা পরে এশার নামাজ পড়া সর্বোত্তম। (আল-বাহরুর রায়েক : ১/৪৩০)

এখন চলুন বাকি নামাজগুলো সম্পর্কেও বিস্তারিত জেনে নেই।

ফজরের নামাজ কয় রাকাত

ফজরের নামাজ মোট ৪ রাকাত।যথা ২ রাকাত সুন্নত এবং ২ রাকাত ফরজ। সুন্নত ২ রাকাত ফজরের পূর্বে আদায় করে নিতে হয়।

সুবেহ সাদিক থেকে শুরু করে সূর্য উদয়ের পূর্ব মুহূর্ত বা ফর্সা না হওয়া পর্যন্ত ফজরের নামাজ আদায় করা যায়।

যোহরের নামাজ কয় রাকাত

জোহরের নামাজ মোট ১০ রাকাত যথা ৪ রাকাত সুন্নত, ৪ রাকাত ফরজ এবং ২ রাকাত সুন্নত। তবে অনেকেই দুই রাকআত নফল নামাজ আদায় করে নামাজের পরে।

আসরের নামাজ কয় রাকাত

আসরের নামাজ মোট ৮ রাকাত যথা, চার রাকাত সুন্নত ও চার রাকাত ফরজ। ৪ রাকাত সুন্নত যেটা পড়তে হয় সেটা সুন্নতে গায়র মুয়াক্কাদা। এটা পড়লে স‌ওয়াব পাবেন, না পড়লে গুনাহ হবে না।

মাগরিবের নামাজ কয় রাকাত

মাগরিব নামাজ মোট ৭ রাকাত যথা, তিন রাকাত ফরজ, দুই রাকাত সুন্নত ও দুই রাকাত নফল। তবে অনেকেই শেষ ২ রাকাত নফল আদায় করে না। এক্ষেত্রে মাগরিব নামাজ মোট ৫ রাকাত হয়।

তো এই ছিলো, এশার নামাজ কয় রাকাত ও কি কি এবং সাথে অন্যোন্য নামাজের বিস্তারিত রাকআতসমূহ বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে।

যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো।

এছাড়াও আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস, ইউটিউবিং, টেকনোলজি বিভিন্ন টিপ্স এন্ড ট্রিক্স, ডিজিটাল স্কিল শিখতে চান তাহলে আমার ইউটিউব চ্যানেল আজই সাবস্ক্রাইব করে ফেলুন। কারন আমি প্রতিনিয়ত ডিজিটাল স্কিল বিষয়ক টিউটোরিয়াল পাবলিশ করে যাচ্ছি আমার চ্যানেলে।

Skillgori Staff

I am Sajid Imon, Professional Web Designer and WordPress developer.

Don`t copy text!